এজেন্ট হিসেবে উভয়ের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করলেন রিজভী ও শাহজাহান খালেদা জিয়াই বিএনপি...

এজেন্ট হিসেবে উভয়ের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করলেন রিজভী ও শাহজাহান খালেদা জিয়াই বিএনপি চেয়ারম্যান ও তারেক রহমান সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান হচ্ছেন

83
0
SHARE

বিএনপির ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিলকে সামনে রেখে ‘চেয়ারপার্সন’ পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন বেগম খালেদা জিয়া। গতকাল বুধবার তার নির্বাচনী এজেন্ট রুহুল কবির রিজভী বেলা পৌনে ১১টার দিকে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অবস্থিত নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসারের অফিস থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন। এছাড়া বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনের জন্য তারেক রহমানের পক্ষে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন দলের যুগ্ম মহাসচিব মোহাম্মদ শাহজাহান। বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে স্থাপিত রিটার্নিং অফিসারের অস্থায়ী কার্যালয় থেকে গতকাল বিকেল পৌনে চারটার দিকে এ মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন তিনি। রিটার্নিং কর্মকর্তা জানান, এই দু’ পদে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান ছাড়া অন্য কেউ মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেননি। ফলে আবারো বিএনপি চেয়ারপার্সন হিসেবে খালেদা জিয়া এবং সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান পদে তারেক রহমানের নির্বাচিত হওয়াটা নিশ্চিত। বিষয়টি শুধু আনুষ্ঠানিক ঘোষণার বাকি আছে।

জানা গেছে, বিএনপি চেয়ারপার্সন পদে মনোনয়নপত্র জমা নেয়ার আগে নির্বাচনী এজেন্ট নিয়োগের বিষয়টি জানিয়ে খালেদা জিয়ার স্বাক্ষরিত একটি পত্র রিটার্নিং অফিসার নজরুল ইসলাম খানের হাতে দেন রিজভী আহমেদ। সহকারী রিটার্নিং অফিসার আবদুল মান্নানও এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

নজরুল ইসলাম খান সাংবাদিকদের বলেন, দলের চেয়ারপার্সন পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য বেগম খালেদা জিয়া তার এজেন্ট হিসেবে রুহুল কবির রিজভীকে মনোনীত করেছেন। রিজভী আমাদের কাছ থেকে খালেদা জিয়ার মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। তিনি জানান, চেয়ারপার্সন ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর বয়স কমপক্ষে ৩০ বছর এবং তাকে দলের চাঁদাদাতা সদস্য হতে হবে। ৪ মার্চ শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত নির্বাচন পরিচালনা কমিশনের অস্থায়ী অফিসে রিটার্নিং অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসারের কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেয়া যাবে।

এদিকে বিএনপি সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনের জন্য তারেক রহমানের পক্ষে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন দলের যুগ্ম মহাসচিব মোহাম্মদ শাহজাহান। রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে স্থাপিত রিটার্নিং অফিসারের অস্থায়ী কার্যালয় থেকে গতকাল বুধবার বিকেল পৌনে চারটার দিকে এ মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন তিনি। এ তথ্য উপস্থিত সাংবাদিকদের জানিয়েছেন রিটার্নিং অফিসারের দায়িত্ব পালনকারী দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সহকারী রিটার্নিং অফিসার চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আবদুল মান্নান।

এদিকে গতকাল মনোনয়নপত্র সংগ্রহের নির্ধারিত সময় শেষে রিটার্নিং কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম খান সাংবাদিকদের বলেন, এখনই খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান নির্বাচিত হয়ে যাননি। এ জন্য যাচাই, বাছাই ও মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ সময় ৬ মার্চ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

এবারের কাউন্সিলে চেয়ারম্যান (চেয়ারপার্সন) ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনের এই আয়োজন করেছে বিএনপি। নিয়ম অনুযায়ী, আগ্রহীরা নিজে কিংবা লিখিতভাবে মনোনীত এজেন্টের মাধ্যমে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে, জমা দিতে বা প্রত্যাহার করতে পারবেন। ভোট গণনার সময়ও উপস্থিত থাকতে পারবেন। তফসিল অনুযায়ী, গতকাল বুধবার বিকেল ৪টা পর্যন্ত মনোনয়ন ফরম নেয়ার সময় ধার্য ছিল। এসব মনোনয়নপত্র জমা দেয়া যাবে ৪ মার্চ পর্যন্ত। ৫ মার্চ বাছাই এবং ৬ মার্চ মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করা যাবে। ১৯ মার্চ কাউন্সিলে ভোট হবে। যাছাই বাছাইয়ে কোন ভুল না থাকলে কাউন্সিলের আগেই বিএনপি চেয়ারপার্সন হিসেবে খালেদা জিয়া এবং সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে তারেক রহমানের নাম ঘোষণা করবেন সংশ্লিষ্টরা।

গত ২৯ ফেব্রুয়ারি চেয়ারপার্সন ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনের জন্য এই তফসিল ঘোষণা করেন কাউন্সিল উপলক্ষে গঠিত নির্বাচন কমিশনের চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার। এক পৃষ্ঠার মনোনয়নপত্রের কোনো মূল্য রাখা হয়নি। ‘চেয়ারপার্সন’ পদে মনোনয়নপত্রে প্রার্থীর নাম, বাবা-মায়ের নাম, স্থায়ী ঠিকানা ও রাজনৈতিক পরিচয়ের বিষয়ে তথ্য চাওয়া হয়েছে। চেয়ারম্যান ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান পদের প্রার্থী হতে বয়স হতে হবে অন্তত ৩০ বছর। তাকে দলের চাঁদাদাতা সদস্য হতে হবে। মনোনয়নপত্রে  প্রস্তাবক ও সমর্থক হিসেবে স্বাক্ষরদানকারী দু’জনকে দলের কাউন্সিলর হতে হবে। তাদের এবং প্রার্থীর দলীয় চাঁদা বকেয়া থাকা চলবে না।

বিএনপির চাঁদা আদায়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত দফতরের কর্মকর্তা রুস্তম আলী বলেন, ম্যাডাম খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান সাহেবের বার্ষিক চাঁদা পরিশোধ করা হয়েছে। স্থায়ী কমিটির সদস্যের চাঁদার হার প্রতিমাসে এক হাজার টাকা। সে অনুযায়ী দু’জনের সমুদয় চাঁদার টাকা পরিশোধ করা হয়েছে।

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের স্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া ১৯৮৪ সাল থেকেই দলটির চেয়ারপার্সনের দায়িত্বে আছেন। ২০০৯ সালের ডিসেম্বরে দলের সর্বশেষ কাউন্সিলে সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান পদ তৈরি করা হয়। এ পদে রয়েছেন খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমান।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY