বাস যোগে ৭ ঘন্টা দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে বাড়ির পাশে এসে লাশ...

বাস যোগে ৭ ঘন্টা দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে বাড়ির পাশে এসে লাশ হলেন মা ও দুই সন্তান। শনিবার রাতে ঢাকার টাঙ্গাইল থেকে হানিফ পরিবহনের একটি বাস যোগে স্ত্রী সন্তানদের সাথে নিয়ে বাড়ির উদ্যেশ্যে রওয়ানা দেন দিদারুল আলম। রবিবার সকালে তারা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বারইয়ারহাটে বাস থেকে নেমে সিএনজি অটোরিক্সা যোগে বাড়ি জোরারগঞ্জ ইউনিয়নের ইমামপুর গ্রামে যাচ্ছিলো। বাড়ির অদুরে একটি বেপরোয়া গতির পিকআপ সিএনজি অটোরিক্সাকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলে মা ও দুই ছেলে মারা যান। রবিবার সকাল ৭ টার সময় পুরাতন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বারইয়ারহাট পৌরসভার তিতার বটতল মানক স্থানে মাছবহনকারী একটি পিকআপ চাপায় সিএনজি এসময় আহত হয় বাবা ও মেয়ে। নিহত ও আহতরা একই পরিবারের সদস্য। নিহতরা হলো দিদারুল আলমের স্ত্রী সাহেদা আক্তার (৩৩), ছেলে আব্দুল্ল্যাহ আল সাইমুম (৯), সাইদুল ইসলাম (১০ মাস)। আহতরা হলো দিদারুল ইসলাম (৪০), ইভা আক্তার (৫)। আহতরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। উপজেলার ৩ নম্বর জোরারগঞ্জ ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের ইমামপুর গ্রামের আমীর হোসেন ভূঁইয়া বাড়ির বাসিন্দা। দিদারুল আলমের আত্মীয় কামরুল হোসেন ও এলাকার বাসিন্দা সোহেল খান জানান, গত কয়েকদিন আগে টাঙ্গাইলে এক আত্মীয়ের বাড়িতে স্বপরিবারে বেড়াতে যান দিদারুল আলম ও তার ভাই রেজাউল করিম রেজা। দিদারুল আলমের স্ত্রী সাহেদার খালাতো বোনের স্বামী মারা যাওয়ার খবর শুনে শনিবার রাতে টাঙ্গাইল থেকে বাড়ির উদ্যেশ্যে স্ত্রী ছেলে-মেয়েদের নিয়ে রওয়ানা দেয়। পুরো পথ চলে আসলেও বাড়ির পাশে এসে লাশ হলো তারা। এমন মৃত্যু মেনে নিতে খুব কষ্ট হচ্ছে। অকালে ৩ টি প্রাণ ঝরে যাওয়ার জন্য বেপরোয়া গতির পিকআপটি দায়ী। প্রশাসনের কাছে একটি দাবী তারা যেন দ্রুত ঘাতক পিকআপ চালককে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় নিয়ে আসে। সরেজমিনে দিদারুল আলমের বাড়িতে গিয়ে দেখা গেছে, বাড়ির উঠোনে পড়ে রয়েছে মা সাহেদার সাথে দুই ছেলের নিথর দেহ। স্বজনদের আহাজারিতে আকাশ-বাতাস ভারি হয়ে উঠে। তাদের কান্না দেখে উপস্থিত কেউ চোখের পানি ধরে রাখতে পারেনি। পুরো ইমামপুর গ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। জোরারগঞ্জ থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রবিবার সকাল ৭ টার সময় পুরাতন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বারইয়ারহাট পৌরসভার তিতার বটতল মানক স্থানে মুহুরী প্রজেক্ট থেকে মাছবহনকারী একটি পিকআপ বেপরোয়া গতিতে সিএনজিঅটোরিক্সাকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলে সিএনজিঅটোরিক্সা যাত্রী মা ও ২ ছেলে ঘটনাস্থলে নিহত হয় এবং আহত হয় বাবা ও মেয়ে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে দুর্ঘটনার শিকার সিএনজিঅটোরিক্সা উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে এবং পিকআপটি উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। এই দুর্ঘটনায় জোরারগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। জোরারগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মকসুদ আহম্মদ চৌধুরী বলেন, সড়ক দূর্ঘটনায় এর আগে আমার ইউনিয়নে একই পরিবারের তিনজন কখনো নিহত হয়নি। এক সাথে তিনজনকে হারিয়ে নির্বাক হয়ে পড়েছেন দিদার। তাকে সান্তনা দেয়ার ভাষাও হারিয়ে ফেলেছি। জোরারগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশের ইনচার্জ ফরিদ উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, দুর্ঘটনার শিকার সিএনজিঅটোরিক্সা ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। এই ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে এবং পিকআপটি উদ্ধারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

186
0
SHARE

গেল সপ্তাহে নানী মারা গিয়েছে হাসিনের। অত্যন্ত প্রিয় এই মানুষটিকে হারিয়ে হাসিন জীবনের সবচেয়ে বড় কষ্টটাই পেয়েছেন। নানীকে হারানোর কষ্ট ভুলতে না পারার কারণে দেশের বাইরে একটি বিগ বাজেটের ধারাবাহিক নাটকে কাজ করার প্রস্তাবও ফিরিয়ে দিয়েছেন তিনি।
বিগত প্রায় তিন মাস যাবত হাসিন অভিনয় থেকে কিছুটা দূরে ছিলেন। সংসার, বাসা পরিবর্তন এবং পারিবারিক নানান ঝামেলার মধ্য দিয়েই কেটে যাচ্ছিল তার সময়। এখন সব কিছুতে কিছুটা স্থিতিশীলতা এসেছে বলে হাসিন আবারো অভিনয়ে নিয়মিত হয়ে উঠেছেন। গত সপ্তাহে ইয়ামিনের নির্দেশনায় ‘এখনো রাত বাকি’ নাটকে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে অভিনয়ে ফিরলেন হাসিন। এতে একটি চ্যালেঞ্জিং চরিত্রে অভিনয় করেছেন হাসিন।
হাসিন বলেন,‘ ক্যামেরার সামনে থাকাটাই যেন অভ্যাসে পরিণত হয়ে গেছে। তাই না থাকলে মনে হয় যেন কী যেন হারিয়ে যাচ্ছে জীবন থেকে। সব ঝামেলা শেষ করে আবারো অভিনয়ে ফিরেছি। এখন থেকে নিয়মিত কাজ করব। এখনো রাত বাকি নাটকের গল্প এককথায় দর্শকের টিভির পর্দায় চোখ রাখার মতো। আমি কাজটি করে তৃপ্ত। আশা করি দর্শকেরও ভালো লাগবে।’
হাসিন অভিনীত ‘এখনো রাত বাকি’ নাটকটি শিগগিরই একটি স্যাটেলাইট চ্যানেলে প্রচার হবে। ২০১১ সালের ভিট চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর প্রথমই হাসিন অভিনয় করেন তাহের শিপনের পরিচালনায় ‘আমাদের ছোট নদী’ নাটকে। এ নাটকে তিনি সুপার মডেল নোবেলের বিপরীতে অভিনয় করার সুযোগ পেয়েছিলেন। এরপর হাসিন অভিনয় করেন সকাল আহমেদের পরিচালনায় ‘নরম রোদের ওম’ নাটকে। এ নাটকে তিনি অভিনয় করেছিলেন মাহফুজ আহমেদের বিপরীতে। হাসিন অভিনীত প্রথম ধারাবাহিক ছিল রাজীবুল ইসলাম রাজীবের ‘নো ম্যানস ল্যান্ড’। এরপর আরো বহু ধারাবাহিকে অভিনয় করেছেন তিনি। সম্প্রতি শেষ হয়েছে বাংলাভিশনে তার অভিনীত মোশাররফ করিম প্রযোজিত ধারাবাহিক ‘তিনি আসবেন’ এবং চ্যানেল আইতে তাহের শিপনের ‘ভৈরব’।
বর্তমানে প্রচার চলছে চ্যানেল নাইনে দীপংকর দীপন পরিচালিত ‘গ্র্যান্ড মাস্টার’, চ্যানেল আইতে কাফী বীরের ‘মেঘের ওপারে’ এবং এটিএন বাংলায় ‘সাহেব বাবুর বৈঠকখানা’।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY