জনাব তারেক সিদ্দিকী প্রস্তুতি নিন বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড়ানোর জন্য

জনাব তারেক সিদ্দিকী প্রস্তুতি নিন বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড়ানোর জন্য

283
0
SHARE

জনাব মেজর জেনারেল তারেক আহমদ সিদ্দিকি খুব ঠাণ্ডা মাথায় গভীর ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে ধ্বংসের প্রক্রিয়াটা পালনে আপনাকে সত্যিই ইতিহাসে কালো অক্ষরে মনে রাখতেই হবে ।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সামরিক উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অবঃ) তারেক আহমদ সিদ্দিকি বিডিআর বিদ্রোহের নামে পিলখানা হত্যাকাণ্ডের অন্যতম একজন লুকায়িত নায়ক । যিনি ঠাণ্ডা মাথায় ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থার পরামর্শে শেখ হাসিনার নির্দেশে গোপন ভাবে চালিয়েছিলেন এই নির্মম হত্যাকাণ্ড । সরাসরি সামনে না এলেও গোপনে পিছন থেকে দিয়ে গিয়েছেন দিক নির্দেশনা ।

শুধু পিলখানা হত্যাকাণ্ডই নয় , প্রধানমন্ত্রীর সকল অপকর্মের একমাত্র গোপন সাক্ষী জনাব তারেক সিদ্দিকি । বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলী গুম , গাজিপুরে খালেদা জিয়ার সমাবেশ বন্ধ , পাইপের মধ্যে জিয়াদ নাটক , নারায়ণগঞ্জের ১১ খুন, বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন আহমেদ কে গুম পরবর্তী ভারতে রেখে আসা, ৫ই মে হেফাজতের উপর নির্মম অত্যাচার ও ইতিহাসের সবচেয়ে জঘন্য হত্যাকাণ্ড সহ প্রায় সহস্রাধিক অন্যায়ের সাথে জড়িত থেকে রাজসাক্ষী হিসেবে আছেন তারেক সিদ্দিকি ।

জনাব তারেক সিদ্দিকি পারবেন কিছু প্রশ্নের জবাব দিতে ?
— পিলখানা হত্যাকাণ্ডের দিন মেজর জেনারেল শাকিল আহমেদ সহ আরও বেশ কয়েকজন সেনা কর্মকর্তা আপনাকে বারবার ফোন করার পর ও সেদিন আপনার ভুমিকা কি ছিল ?
— বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলিকে গুম করে ফিরিয়ে দেবার পরিকল্পনা থাকার পর ও উনাকে হত্যা করার পরিকল্পনাটা কার মাথা থেকে এসেছিল মনে পড়ে কি ?
— হেফাজতের উপর ৫ই মে অন্যায় অত্যাচারে বাংলাদেশের পুলিশের অসস্মতি থাকার পর ভারতীয় স্টিয়ারিং বাহিনী ও বিজিবি থেকে বাছাইকৃত কিছু কুলাঙ্গারকে দিয়ে নিরীহ আলেমদের উপর অত্যাচার করার পরামর্শ কে দিয়েছিলো ?
— ভারতীয় “র” এর সাহায্যে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে পুরাপুরি ধ্বংসের প্রক্রিয়াটা হাসিনার মাথায় এঁটে দিয়েছিলেন কেন ?
— বাংলাদেশের চলমান গুম ও খুনের এই সকল নরকিয় ঘটনার সাথে জড়িত থাকার পর ও আপনি কি ভাবছেন আপনাকে রক্ষা করতে পারবেন ?
— আপনার কি ধারনা মতিউর রহমান রেন্টূর মতো “আমার ফাঁসি চাই” বই লিখে নিজেকে বাংলাদেশের মানুষের কাছ থেকে ক্ষমা চাইয়ে নিবেন ?

এই প্রশ্নগুলার জবাব আপনাকে একদিন না একদিন দিতেই হবে ।
স্বাধীনতা যুদ্ধে দীর্ঘ ৯ মাস ধরে ৫১ জন সেনা কর্মকর্তা হারিয়েও এতটা কষ্ট পাইনি যতটা না পেয়েছি পিলখানা ট্র্যাজেডিতে ৫৭ জন চৌকস অফিসারকে হারিয়ে ।

সহযাত্রী হারানোর ব্যাথা বর্তমানের Bangladesh Army (বাংলাদেশ সেনাবাহিনী) ভুলে যেতে পারে খুব সহজেই কিন্তু স্বজন হারা ব্যাথা ভুলবেনা হারিয়ে যাওয়া ব্যাক্তিদের স্বজনেরা ।

ঠিক তেমনি আমিও ভুলবনা কারন আমিও যে হারিয়েছি আমার সবচেয়ে কাছের একজন প্রিয় মানুষকে ।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY