তারেক রহমানের বিরুদ্ধে কটুক্তির প্রতিবাদে ফ্রান্সে প্রতিবাদ

তারেক রহমানের বিরুদ্ধে কটুক্তির প্রতিবাদে ফ্রান্সে প্রতিবাদ

532
0
SHARE

বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে কটুক্তির প্রতিবাদে ফ্রান্সের প্যারিসের “পোর্টখ ডো পনথা” ঐতিহ্যবাহী “কেন” ফেস্টিবল চত্তরে জাতীয়তাবাদী নাগরিক মুক্তি পরিষদ, কর্তৃক আয়োজিত “প্রতীকি প্রতিবাদ” সভায় এবং পরে মুখে কালো কাপড় বেঁধে প্রতিবাদ জানায়| উক্ত প্রতিবাদ সভায় সংগঠনের আহবায়ক শামীমা আক্তার রুবীর সভাপতিত্ত্বে গোলাম রসুল রুবেলের পরিচালনায় প্রতিবাদ সভ অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিবাদ সভায় বক্তারা বলেন , বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ও তিনবারের প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সুযোগ্য সন্তান তারেক রহমান সম্পর্কে অবৈধ প্রধানমন্ত্রী যা বলেছেন, তা রাজনৈতিক শিষ্টাচার বিবর্জিত, অত্যন্ত কুরুচিকর, উস্কানিমূলক, ঔদ্ধত্যপূর্ণ, অপরিণামদর্শী এবং ভয়ংকর প্রতিহিংসার বহিঃপ্রকাশে পরিপূর্ণ। পুলিশের সাম্প্রতিক অভিযান ও বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা নিয়ে জনমনে যে ক্ষোভ জমেছে তা আড়াল করতেই প্রধানমন্ত্রী তারেক রহমানকে আক্রমণ করেছেন। সংগঠনের আহবায়ক শামীমা আক্তার রুবী আরো বলেন -মিথ্যা, বানোয়াট ও কুরুচিপূর্ণ ভাষা ব্যবহার করে এদেশের মানুষের হৃদয় থেকে জিয়া পরিবার তথা তারেক রহমানকে মুছে ফেলা যাবে না। দেশনায়ক তারেক রহমানকে নিয়ে কুটূক্তি, দেশের সর্বোচ্চ আদালত আজকের অবৈধ প্রধানমন্ত্রীকে যে ‘রং হেডেড’ বলেছেন এই বক্তব্যের মধ্য দিয়ে তারই যথার্থতা প্রমাণিত হলো। তারেক রহমান বাংলাদেশের বর্তমান সমসাময়িক রাজনীতিতে নতুন প্রজন্মের নেতা হিসেবে সবচেয়ে জনপ্রিয়। আর তার এই জনপ্রিয়তার কারণেই ভীত অবৈধ সরকার। দেশ ও দেশের মানুষের গণতন্ত্র মুক্তির সংগ্রামে নেতৃত্ব দিচ্ছেন বলেই বর্তমান অবৈধ প্রধানমন্ত্রী ও সরকারের টার্গেটে পরিণত হয়েছেন তিনি। তারেক রহমানকে রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা করতে না পেরে যে অপপ্রচারের কৌশল বেছে নিয়েছে বর্তমান সরকার তা ব্যর্থ হবে। তাদের কাছ থেকে জনগণ মুখ ফিরিয়ে নেওয়ায় আওয়ামী লীগ নেত্রী এমন প্রলাপ বকছেন। উল্টো দেশের মানুষ দেখছে, তিনি তার অবৈধ ক্ষমতাকে ব্যবহার করে কিভাবে তারেক রহমানকে দীর্ঘ সময় ধরে হুমকির মধ্যে রেখেছেন। দেশের হাজারো সমস্যা থাকলেও তার চোখে জিয়া পরিবারই এখন একমাত্র সমস্যা। জাতি আশা করে একজন রাজনৈতিক নেত্রী হিসেবে তিনি রাজনীতির শিষ্টাচার রক্ষা করবেন । না হলে তার এমন আচরনের জন্য তিনি একদিন ইতিহাসের আস্তাকূড়ে নিক্ষিপ্ত হবেন। জাতীয় প্রেস ক্লাবে শনিবার (১৮ জুন) বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) একাংশ আয়োজিত ইফতার মাহফিলে তারেক রহমানের নাম উল্লেখ না করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘লন্ডনে এক কুলাঙ্গার বসে আছে। তাকে আদর দিয়ে ব্রিটিশ সরকার বসিয়ে রেখেছে ব্রিটিশ সরকার কেন তাকে আশ্রয় দিয়েছে জানি না | টীউলিপকে নাকি হত্যার হুমকি দিচ্ছে তারেক। ব্রিটিশ সরকারের দায়িত্ব এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া।’ প্রধানমন্ত্রীর ওই বক্তব্যের প্রতিবাদে জাতীয়তাবাদী নাগরিক মুক্তি পরিষদ, ফ্রান্সের আহবায়ক শামীমা আক্তার রুবী তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানান | তারেক রহমানের জনপ্রিয়তাই অবৈধ সরকারকে ভীত সন্ত্রস্ত করেছে | কারণ সে যে মিথ্যে অহমিকায় জন্ম এই বাকশালীদের জননি শেখ হাছিনা | প্রধানমন্ত্রীর ওই বক্তব্যের প্রতিবাদে জাতীয়তাবাদী নাগরিক মুক্তি পরিষদ, ফ্রান্সের আহবায়ক শামীমা আক্তার রুবী তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানান | তারেক রহমানের জনপ্রিয়তাই অবৈধ সরকারকে ভীত সন্ত্রস্ত করেছে | কারণ সে যে মিথ্যে অহমিকায় জন্ম এই বাকশালীদের জননি শেখ হাছিনা | সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের উপদেষ্ঠা ডঃ কামরুল হাছান (পরিবেশ বিজ্ঞানী ), কৃষক মোঃ আব্দুল কাইয়ুম সরকার (যুগ্ম সম্পাদক ফ্রান্স বি,এন,পি), প্রফেসর তাছলিমা আক্তার, আল আমিন ছাত্র নেতা মুন্সিগন্জ,মো: আবদুল করিম মাস্টার, নুরুজ্জামান নোমান, জিতেন সুত্রধর, মেহেরা বেগম, শাজরিন নাহার, মো: আকাশ মিয়া, মো: নাসির উদ্দিন, মোঃ শফিকুল ইসলাম, মোঃ আকবর আলী,মোঃ একরামুল হক,মোঃ লিটন মিয়া,জামাল উদ্দিন, দ্দিন,উদ্দিন, আব্দুল লতিফ টিপু, মোঃ ইকবাল হোসেন,ফরিদ উদ্দিন বাবুল, বাদল চন্দ প্রমুখ |

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY