ছাত্রলীগ এর মত জঙ্গি সংগঠন থাকতে আইএস এর কি দরকার?

ছাত্রলীগ এর মত জঙ্গি সংগঠন থাকতে আইএস এর কি দরকার?

104
0
SHARE

মধ্য প্রাচ্যে মূখোশ পড়ে কালো পোষাকে পড়ে সাধারণ মানুষ হত্যা ও সম্পদ ধ্বংস করছে আইএস।

পক্ষান্তরে বাংলাদেশে ছাত্রলীগ নামক জঙ্গি সংগঠন মায়ের পেটে শিশুকে গুলি করে হত্যা, প্রকাশ্য চাপাতি দিয়ে বিশ্বজৎ হত্যা, ক্যাম্পাস গুলোতে প্রকাশ্য চাপাতি মিছিল ও চাঁদার দাবীতে প্রবাসীর স্ত্রী ফেনীর গৃহবধূ কে গণধর্ষণ এসবই আইএস কাইদায় অপরাধ সংঘটিত।
সুতারাং সেই দেশে আইএস এর শাখা মানে ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাওয়া যাচ্ছে। বিরোধী দল ও জামায়াত-শিবির যখন আন্দোলন থেকে দুরে তখন কি ভাবে গ্রেফতার করা যায়?

তাই মুফতি হাসানুল হক ইনু কে দিয়ে ঘোষনার করা হলো ৮ হাজার গায়েবী সদস্য বাংলাদেশে আছে।
এখন প্রমাণ করতে নাটক শুরু হলো জামায়াত কে দিয়ে। নীলফামারী জামায়াতের আমীর কে গ্রেফতার করে বলা হচ্ছে আইএস সদস্য গ্রেফতার। জনগণ কে আর মিথ্যে নাটকে আটকানো যাবে না। কারণ এরকম নাটকে জনগণ অভ্যেসত্ব হয়েছে। আইএস বলতে একটাই সংগঠন তাহলো ছাত্রলীগ।
বাংলাদেশের ইতিহাস এমন কোন কর্মকান্ড নাই যা ছাত্রলীগ করে নাই।
খুন, ধর্ষণ, চাঁদাবাজি, বোমা বাজি, টেন্ডার বাজি, হল দখল, নিজ দলের কর্মীদের হত্যা,রগ কাটা, চুরি,ডাকাতি, মায়ের বুকে শিশু কে পর্যান্ত গুলি করে নষ্ট করা, ধর্ষনের সেঞ্চুরি করে মিষ্টি বিতরণ, এরা কোন দিক দিয়ে আইএস এর ছেয়ে কম নয়, এমন ভয়ংকর একটি জঙ্গি সংগঠন (ছাত্রলীগ) থাকতে আইএস এর আদো কি কোন দরকার আছে??? তাই বলা যায় আইএস=ছাত্রলীগ এক ই মুদ্রার এই পিঠ-ওপিঠ।

বাংলাদেশ এর শান্তি প্রিয় জনতার একটাই প্রাণের দাবী এ সন্ত্রাসী জঙ্গি সংগঠন এখন ই নিষিদ্ধ করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া। আসুন আজ থেকে আমরা এ জঙ্গি গোষ্ঠীর বিরোদ্ধে।প্রতিরোধ ঘরে তুলি

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY