ব্যর্থতার দায় আড়াল করতেই সরকার জঙ্গিবাদের ইস্যুকে জিইয়ে রাখছে: নজরুল ইসলাম খান

ব্যর্থতার দায় আড়াল করতেই সরকার জঙ্গিবাদের ইস্যুকে জিইয়ে রাখছে: নজরুল ইসলাম খান

379
0
SHARE

অতীতের ব্যর্থতার আড়াল করতেই সরকার জঙ্গিবাদের ইস্যুকে জিইয়ে রাখছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান।
মঙ্গলবার বিকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে ‘ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ-ড্যাব’ এর উদ্যোগে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে মুদ্রা পাঁচার মামলায় উচ্চ আদালতে সাজা দেয়ার প্রতিবাদে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
নজরুল ইসলাম বলেন, সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ দমন করার লক্ষ্যে একসাথে কাজ করার প্রস্তাব দিয়েছেন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া। আমরা বিশ্বাস করি যেকেনো প্রশাসন বা পুলিশ দিয়ে এই ধরণে সন্ত্রাস বা কোনো কার্য্ক্রম দমন করা যায় না, জনগনকে সাথে নিয়ে এটা দমন করতে হয়। কিন্তু সরকার তাতে আগ্রহী না।
তিনি বলেন, তাদের (সরকার) এই আগ্রহী না হওয়ার প্রধান কারণ হলো- এই ইস্যুটাকে(জঙ্গিবাদ) জিইয়ে রাখতে হবে যাতে করে জনগন অন্যান্য ইস্যুগুলোর কথা ভুলে যায়। গণতন্ত্রের কথা ভুলে যায়, শেয়ার মার্কেট লুটের কথা ভুলে যায়, ব্যাংক লুটের কথা ভুলে যায়, বাংলাদেশ ব্যাংক লুটের কথা ভুলে যায়, দুর্নীতি অনাচারের কথা ভুলে যায়, খুন-অপহরণের কথা ভুলে যায়, মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করার কথা ভুলে যায়, লাখ লাখ মানুষকে নিঃস্ব করে দেয়ার যে নানা অপচেষ্টা সেগুলো কথা ভুলে যায়।
দেশের বর্তমান অবস্থাকে সংকটজনক অভিহিত করে এথেকে উত্তরণে সরকারের আন্তরিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেন নজরুল ইসলাম খান বলেন, আমরা একটি অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে জনগনের ভোটে নির্বাচিত সরকার কায়েম করার জন্য লড়াই করছি। এই লড়াইকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য সরকার একটার পর একটা নতুন নতুন ইস্যু সৃষ্টি করা হচ্ছে। একটা ইস্যুর নিচে আরেক ইস্যুকে চাপা দেয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে।
এই ইস্যুগুলো যাতে না থাকে বিশেষ করে যে, সন্ত্রাস ও উগ্রবাদের ইস্যুকে সামনে নিয়ে আসা হয়েছে, জঙ্গি ইস্যু সামনে নিয়ে আসা হয়েছে।
ড্যাবসহ সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানিয়ে নজরুল ইসলাম খান বলেন, এই বিরুপ পরিস্থিতিতে সবাইকে এক সাথে কাজ করতে হবে, কাজ চালিয়ে যেতে হবে। আমি বিশ্বাস করি, একটি নির্দিষ্ট মুহুর্তে নিশ্চয়ই জেগে উঠবে সবাই, যেমন জেগে উঠেছিলো, পাকিস্থান হানাদার বাহিনীর আক্রমনের মুখে ২৬ মার্চ শহীদ জিয়ার আহবানের মধ্য দিয়ে। আবার কখনো সেরকম আহবান আসছে, আসবে। সেই আহবানের সাড়া দেয়ার জন্য সবাইকে প্রস্তুতি নিতে এবং সাহসের সাথে সেই লড়াইয়ে শরিক হতে।
দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বির“দ্ধে উচ্চ আদালতের সাজা সম্পর্কে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য বলেন, আজকে তারেক রহমানকে অন্যায়ভাবে অভিযুক্ত করে মামলার নামে সাজা দেয়া হয়েছে। এটা অবিচার। কিন্তু নিশ্চয়ই এদেশের জনগন যারা ভাষার জন্য জীবন দিয়েছে, যারা গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করেছে, যারা স্বাধীনতার জন্য জীবন দিয়েছে, যারা আবার সেই স্বাধীনতার সুবর্ন ফসল গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য জীবন দিয়েছে, সেই বাংলাদেশে নিশ্চয়ই একদিন সুবিচার হবে এবং তারেক রহমান নির্দোষ নিরাপরাধ প্রমাণ হবে ইনশাল্লাহ।
তিনি বলেন, তারেক রহমানের বিরুদ্ধে কেনো এই ক্রোধ ? যখন তিনি রাজনীতিতে আসেন নাই, তখন তার বিরুদ্ধে কারো কোনো অভিযোগ ছিলো না। ২০০১ সালের পর সক্রিয়ভাবে দলে সাংগঠনিক কাজে অংশগ্রহন করলেন,বিভিন্ন পর্যায়ে বিএনপিকে শক্তিশালী করার উদ্যোগ নিলেন তখনই শুরু হলো তার বিরুদ্ধাচার। শতমুখে তারেক রহমানের বির“দ্ধে মিথ্যাচার শুরু হলো। এসব করেও তার জনপ্রিয়তা রুখতে পারেনি। রাজনীতি থেকে দূরে রাখতে সরকার বিএনপির নেতৃত্বকে মিথ্যা মামলায় সাজা দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেন নজরুল ইসলাম খান।
সংগঠনের সহসভাপতি রফিকুল কবির লাভুর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, ড্যাব এর মহাসচিব অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেন, ডা. মোস্তাক রহিম স্বপন, আবদুল মান্নান মিয়া, সিরাজউদ্দিন আহমেদ, রফিকুল ইসলাম বাচ্চু, শিক্ষক-কর্মচারী ঐক্যজোটের অধ্যক্ষ সেলিম ভুঁইয়া প্রমূখ।
রফিক মৃধা

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY