তারেকের মামলা প্রত্যাহার করতে আ’লীগই বাধ্য হবে: আব্দুল্লাহ আল নোমান

তারেকের মামলা প্রত্যাহার করতে আ’লীগই বাধ্য হবে: আব্দুল্লাহ আল নোমান

158
0
SHARE

বিএনপির সিনিয়র বাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে যারা ‘আওয়ামী লীগ’ মামলা দিয়েছে তারাই সেই মামলা প্রত্যাহার করে নিতে বাধ্য হবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান।
বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে জাসাস- ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আয়োজিত বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ষড়যন্ত্রমূলক রায়ের বিরুদ্ধে এ প্রতিবাদে প্রতিবাদ সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।
আব্দুল্লাহ আল নোমান বলেন, তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মামলা রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। এছাড়া অর্থ পাচার মামলার সঙ্গে তারেক রহমানের কোন সম্পৃক্ততা নেই। তাই আমরা ‘বিএনপি’ এই মামলাকে গুরুত্ব দিচ্ছি না।
মামলাটিতে বিএনপি গুরুত্ব না দেওয়ার কারণ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, দেশে এমন পরিস্থিতি তৈরী হবে যখন বর্তমান সরকার এবং তত্ত্বাবধায়ক সরকার কিংবা রাজনৈতিক পটপরিবর্তনে যে সরকার প্রতিষ্ঠিত হবে তারাই বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যানের মামলা প্রত্যাহার করে নেবেন।
বিএনুপে এই নেতা বলেন, দেশে গণতন্ত্র না থাকলে জঙ্গিবাদের উত্থান ঘটবেই। তাই জঙ্গিবাদ রুখতে হলে দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত করতে হবে। আর গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত করতে হলে আমাদের গণতান্ত্রিক আন্দোলনের কৌশল নির্ধারণ করতে হবে। কারণ এর আগে আমাদের ‘বিএনপি’ গণতান্ত্রিক আন্দোলনগুলো সরকার প্রশাসন ও অস্ত্র দিয়ে দমন করেছে। কিন্তু এবার সেটা করতে দেওয়া যাবে না।
দেশের বিভিন্ন অঞ্চল বন্যায় ভাসছে উলে­খ করে বিএনপির এ নেতা বলেন, বন্যার কারণে হাজার হাজার মানুষ বাসস্থানচ্যুত হয়েছেন। এই সকল ক্ষতিগ্রস্থ মানুষুগলোর ত্রাণ ও সহযোগিতা প্রয়োজন। আর এই কারণে আমাদের সবার সম্মিলিত উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে
জঙ্গিবাদ র“খতে জাতীয় ঐক্যে ছাড়া বিকল্প আর কোন পথ নেই মন্তব্য করে তিনি বলেন, আমরা সরকারকে জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলার জন্য আহবান জানিয়েছি। কিন্তু সরকার বলছে, জাতীয় ঐক্য হয়ে গেছে। তবে সরকার মনে রাখতে হবে, ১৪ দলের ঐক্যকে জাতীয় ঐক্য বলা যাবে না। কারণ জাতীয় ঐক্য গড়তে হবে সেখানে জনগণের সম্পৃক্ততা থাকতে হয়।
তিনি জানান, জঙ্গিবাদ রুখতে বিএনপি জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার কাজ শুরু করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় ইতিমধ্যে দেশের বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের আমরা ‘বিএনপি’ বৈঠক করেছি। সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা বিএনপির ডাকে সাড়া দিয়েছে বলেও জানান নোমান।
সভায় হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন-অবৈধ, ভোটারবিহীন এই সরকারের সাথে ৭০ ভাগ জনগণ নেই। তাই ভীত হয়ে নির্লজ্জ, মিথ্যাভাবে বিএনপি’র সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান জনাব তারেক রহমান এর বিরুদ্ধে য়ড়যন্ত্রমূলক রায় দিয়েছে। আমরা এর বিরুদ্ধে নির্ভয়ে প্রতিরোধ গড়ে তুলবো ইনশাআল্লাহ।
বিশেষ অতিথি ছিলেন বিএনপি’র সহ তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক জনাব হাবিবুর রহমান হাবিব, জাসাস সভাপতি এম এ মালেক। প্রতিবাদ সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন জাসাস কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সভাপতি একুশে পদকপ্রাপ্ত ছড়াকার আবু সালেহ, রফিকুল ইসলাম রফিক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম খান, জাসাস ঢাকা মহানগর দক্ষিণ এর সাধারণ সম্পাদক খালেদ এনাম মুন্না, উত্তরের আহবায়ক ডা. আরিফুর রহমান মোল্লা, দক্ষিণ এর সহ সভাপতি মাহতাব শিকদার, চিত্রনায়িকা শাহরিয়ার ইসলাম শায়লা, শাহিনুর আবেদীন, সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী আনোয়ার হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দ্বীন মো: দুলু, ইরানুল ইসলাম বিপ্লব, তারেক কবীর, মজিবর রহমান, নিজাম উদ্দিন প্রমুখ।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY