জনগণকে সঙ্গে নিয়ে বিএনপি জাতীয় ঐক্য গড়বে: হান্নান শাহ

জনগণকে সঙ্গে নিয়ে বিএনপি জাতীয় ঐক্য গড়বে: হান্নান শাহ

133
0
SHARE

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার (অব.) আ স ম হান্নান শাহ বলেছেন, জনগণকে সঙ্গে নিয়ে বিএনপি জাতীয় ঐক্য গড়বে। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে অালাপ-অালাচনা করা হবে। তখন সরকারকেও অাহ্বান জানাবো।

শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে জিয়া পরিষদ আয়োজিত ‘জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ প্রতিরোধে জাতীয় ঐক্য’ শীর্ষক এক আলোচনায় তিনি এ কথা বলেন।

জামায়াতকে নিয়ে সরকারের রাজনৈতিক অবস্থানের সমালোচনা করে হান্নান শাহ বলেন, ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ জামায়াতকে নিয়ে কাঠ খেলছে। যেভাবে ভারত কাস্মিরকে নিয়ে খেলে।

তিনি বলেন, আপনারা খোঁজ নিয়ে দেখতে পাবেন কাদের সঙ্গে জামায়াতের যোগাযোগ বেশি। আওয়ামী লীগের সঙ্গে জামায়াতের লোকদের কত রকম আতীয়তা রয়েছে।

বিএনপির এই নেতা বলেন, এই সরকার বলেছিল, জুন মাসের মধ্যে জামায়াতকে নিষিদ্ধ করবে। কই, জুন মাস তো চেলে গেল। আসলে কইও নাই খইও নাই।

তিনি বলেন, জনগণকে সঙ্গে নিয়ে বিএনপি জাতীয় ঐক্য গড়বে। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে অালাপ-অালাচনা করা হবে। তখন সরকারকেও অাহ্বান জানাবো। তাতে সাড়া না দিলে ভাববো, অাপনারাও সন্ত্রাসের সঙ্গে জড়িত।

হান্নান শাহ বলেন, বাংলাদেশ থেকে জঙ্গি সংগঠন জেএমবিকে নিচিহ্ন করেছে বিএনপি সরকার। বর্তমান সরকারের আমলে সেই জঙ্গিরা আবার মাথা চাড়া দিয়ে উঠেছে। সরকার সেইসব জঙ্গিদের দমন না করে বিএনপি নেতাদের পিছনে ছুটছেন। এই সরকার একটা অপদার্থ সরকার।

দেশে সন্ত্রাসবাদের জন্য ভারত কে উস্কানি দাতা ইঙ্গিত করে বিএনপির এই সিনিয়র নেতা বলেন, “ভৌগলিক কারণে বাংলাদেশ বৈদেশিক আগ্রাসনের শিকার হচ্ছে। বিশেষ করে একটি দেশ (ভারত) এর উত্তম ফায়দা নিচ্ছে। তারা বাংলাদেশে সন্ত্রাসবাদকে উস্কে দিচ্ছে।”

ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ সন্ত্রাসের সাথে মিত্র করেছে অভিযোগ করে হান্নান শাহ বলেন, “আওয়ামী লীগ গণবাহিনীর সরদার ইনুকে নিয়ে মিত্র করেছে। পার্শবর্তী দেশ যারা দেশে সন্ত্রাসবাদকে উস্কে দিচ্ছে। সন্ত্রাসীদের লালন করছে। তাদের সাথে মিত্র করেছে!”

ভারতের সাথে পানি সমস্যা নিয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে তিনি আরো বলেন, ‘ওরা আমাদের পানি দিয়েও মারতে চায়। আমরা ন্যায্য হিস্যা পাচ্ছি না।’

জিয়া পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান কবীর মুরাদ এর সভাপতিত্বে এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপিস্থিত ছিলেন, মুক্তিযোদ্ধা মেজর জেনারেল (অব:) সৈয়দ মোহাম্মদ ইব্রাহিম বীর প্রতীক, প্রফেসর ড. মোহাম্মদ লুৎফর রহমান প্রমুখ।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY